ইসলামিক নাম: কেন এবং কিভাবে খুঁজে নিবেন।

ইসলামিক নাম একজন মুসলিম হিসাবে
নির্দিধায় আমরা সকলেই রেখে থাকি বা ব্যবহার করি। বিষয়টি খুব গুরত্বপূর্ণ। একটি ভাল
অর্থবোধক ও সুন্দর নাম কে না চায় তার বাচ্চার জন্য পছন্দ করতে!

সকল ধর্ম বর্ণের মানুষের নিকটই
নি:সন্দেহে এটি অগ্রগণ্য এবং অপরিহার্য একটি বিষয়।

তবে, আপনি যদি মুসলিম হয়ে
থাকেন তাহলে ইসলাম ধর্মের আদর্শ অনুযায়ী এর গুরত্ব ইহলৌকিক জগতের সাথে সাথে পরকালেও
রয়েছে।

নামের প্রভাবে মানুষ প্রভাবান্বিত
হয়। কথাটি সত্য।

আপনার নামের অর্থ যদি সুন্দর
হয় তাহলে এর সৈন্দর্যের কিছুটা ছোঁয়া আপনার বাস্তব জীবনেও পড়বে। যারা আপনার সহচর তারা
বিষয়টি ভালভাবে অনুধাবন করতে পারে।

আর যদি কোন অর্থের দিকে না
তাকিয়ে নাম রাখতে হয় বলেই রেখে নেওয়া – এমনটি যদি হয়, তাহলে বুঝা যাবে তার হারানোর
কিছু নেই। বিষয়টি মোটেও কাম্য নয়।

মনে রাখতে হবে, নামের দ্বারাই
আপনি এই জগত সংসারে পরিচিতি হবেন। এটি হবে আপনার সনাক্তকরণ ও ব্যক্তিত্ব বিকাসের জন্য
একটি ইউনিক হাতিয়ার।

সুন্দর একটি ভালো অর্থের নাম
আপনার পারিবারিক ঐতিহ্য থেকে শুরু করে সামাজিকভাবে আপনার ফুটিয়ে তুলতে গুরত্বপূর্ণ
ভূমিকা পালন করবে।

আর এজন্যই, আপনার সদ্যজাত
শিশুর জন্য একটি ভাল নাম খুঁজে নেওয়া এতটা ক্রশিয়াল।

এই পোষ্টে মুলত: ইসলামিক নাম
এর গুরত্ব এবং আপনার শিশুর জন্য সুন্দর একটি নাম বাছাই করতে কি কি বিষয় বিবেচনা করা
উচিত – এই সব বিষয়ে কিছু প্রয়োজনীয় তথ্য উপস্থাপনের চেষ্টা করব।

 

তো, চলুন শুরু করি।

সুন্দর অর্থপূর্ণ ইসলামিক নাম এর গুরত্ব

আমাদের প্রিয় নবি (সাল্লেল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) মানুষের ভাল নাম রাখার উপর গুরত্ব আরোপ করেছেন। তিনি (সাঃ) বার বার উল্লেখ করেছেন মাতা পিতার জন্য কর্তব্য তাদের সন্তানের জন্য ভাল এবং উপযুক্ত নাম নির্বাচন করা যা উচ্চারণে সহজ হয় এবং শুনতে ভাল শুনায়।

যে বিষয়টি সচারাচর আমাদের মনযোগেও আসেনা সে বিষয়টির গুরত্বও আমাদের প্রিয় নবি হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) আমাদের মাঝে তুলে ধরেছেন।

হুজুর সাঃ বলেছেন যার মর্মার্থ এমন যে, যখন একটি শিশু জন্ম লাভ করে, চাই সে ছেলে বা মেয়ে যেকোনটিই হোক না কেন, সে তার মাতা পিতার প্রতি তিনটি অধিকার সংরক্ষণ করে।

বিশেষ করে তার পিতার উপর তিনটি দায়িত্ব বর্তায়। যার একটি হলো শিশুটির জন্য যেন একটি সুন্দর নাম রাখা হয়।

একটি সুন্দর নাম কোন মানুষের শুধু তার কৃষ্টি-কালচার, ধর্ম ইত্যাদি বিষয়ই তুলে ধরেনা। বরং, এর সাথে সাথে তার ব্যক্তিত্ব বিকাশেও গুরত্বপূর্ণ নিয়ামক হিসাবে কাজ করে। যা সামাজিকভাবে তাকে প্রতিষ্ঠিত করতে পারে।

এজন্য মা-বাবা অনেক সময় দেখা যায়, তার সদ্য ভূমিষ্ট হওয় শিশুর নাম আমাদের প্রিয় নবি (সাঃ) থেকে শুরু করে অনেক পীর-বুজুর্গদের এবং বিখ্যাত ব্যক্তিত্বদের নামের সাথে মিলিয়ে রাখতে দেখা যায়।

আর তাই, বাচ্চা জন্ম লাভের পর তার ভাল একটি খুজেঁ পাওয়ার জন্য অনেক মা-বাবাই চেষ্টা করে। তবে, এক্ষেত্রে তার নাম বাছাইয়ের জন্য ধর্মিয় এবং কৃষ্টি-কালচার গত বিষয়ের প্রতি অধিক মনযোগী থাকে।

কাজেই, আপনার শিশুর ইসলামিক নাম খুঁজে পেতে আপনাকে সচেষ্ট হতে হবে।

 ভাল ইসলামিক নাম নির্বাচনের উপায়

যেহেতু অদ্যকার টপিকস এ ইসলামিক নাম বিষয়ে আলোচনা হচ্ছে, তাই মুসলমান হিসাবে আপনার প্রতি আল্লাহ্ তায়ালা এবং তার রাসুল (সাঃ) এর অনুগ্র হ যে সবচেয়ে বেশী তা মাথায় রাখতে হবে।

এজন্য আপনি হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর নাম এবং আল্লাহ্ তায়া নিরানব্বই টি গুনবাচক নাম এবং তার তাৎপর্য অনুধাবন করে বাস্তব জীবনে তার প্রতিফলন ঘটাতে হবে।

কাজেই, মুসলিম মা-বাবা হয়ে সকলের মনেই আকাংখা রাখা উচিত তার আদরের সন্তানের সুন্দর একটি নামের সাথে যেন আল্লাহও ও তার রাসুল (সাঃ) এর নামও অন্তর্ভূক্ত থাকে।

 

বন্ধুগন, ইসলামিক নাম বিষয়ের উপর বর্ণিত তথ্যসমূহের উপর কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন।

আরোও দেখুন-

মেয়ে শিশুদের ইসলামিক নামের তালিকা।

ছেলে শিশুর ইসলামিক নামের তালিকা।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

A Veterinarian, Graduated from Bangladesh Agricultural University.